ওয়েড পারলেন না অস্ট্রেলিয়াকে জেতাতে!

ওয়েড পারলেন না অস্ট্রেলিয়াকে জেতাতে!

ওভাল টেস্টে ৩৮২ রানে এগিয়ে থেকে চতুর্থ দিনের খেলা শুরু করে ইংল্যান্ড। ক্রিজে অপরাজিত ছিলেন আর্চার এবং লিচ। তবে চতুর্থ দিনে খেলা শুরু করে বেশিক্ষণ টিকতে পারেনি ইংল্যান্ড। আগের দিনের রানের সাথে মাত্র ১৬ রান যোগ করতে না করতেই শেষ দুই উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। অস্ট্রেলিয়ার সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় ৩৯৯ রান। ৩৯৯

ডেনলি-স্টোকসের ইনিংসে তৃতীয় দিনটা শুধু ইংল্যান্ডের!

ডেনলি-স্টোকসের ইনিংসে তৃতীয় দিনটা শুধু ইংল্যান্ডের!

ওভাল টেস্টে দ্বিতীয় দিনের শেষভাগে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নামে ইংল্যান্ড। শেষ পর্যন্ত ৪ ওভার ব্যাট করে বিনা উইকেট হারিয়ে ৯ রান তুলে দিন শেষ করে থ্রি লায়নসরা। তৃতীয় দিনে ৭৮ রানে এগিয়ে থেকে খেলা শুরু করে রুটের দল। বার্নস-ডেনলি জুটি দারুণ শুরু এনে দেয় ইংল্যান্ডকে। তবে দলীয় ৫৪

আর্চারময় দ্বিতীয় দিনে তবু উজ্জ্বল স্মিথ!

আর্চারময় দ্বিতীয় দিনে তবু উজ্জ্বল স্মিথ!

ওভাল টেস্টে প্রথম দিন শেষে ৮২ ওভার ব্যাট করে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৭১ রান তোলে ইংল্যান্ড। বাটলার অপরাজিত থাকেন ৬৪ রানে। অন্য প্রান্তে লিচ ব্যাট করছিলে ১০ রানে। তবে দ্বিতীয় দিনে ব্যাট করতে নেমে নিজের ইনিংসকে খুব বেশি দূর এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেননি বাটলার। আগের দিনের করা রানের সাথে মাত্র

মার্শের দিনে ভাগ বসালেন বাটলার!

মার্শের দিনে ভাগ বসালেন বাটলার!

অ্যাশেজ শিরোপা নির্ধারণ হয়ে গেছে আগেই। শেষ ম্যাচে তাই নিজেদেরকে ফিরে পাওয়ার লড়াইয়ে নেমেছিল ইংল্যান্ড। ওভাল টেস্টে টস হেরে আগে ব্যাট করতে নাম থ্রি লায়নসরা। শুরুটা ভাল করার আশাই দেখাচ্ছিলেন দুই ওপেনার ররি বার্নস এবং জো ডেনলি। কিন্তু ভালটা হতে দিলেন না পেসার প্যাট কামিন্স। দলীয় ২৭ রানে জো ডেনলিকে

অ্যাশেজ শিরোপা ধরে রাখলো অস্ট্রেলিয়া!

অ্যাশেজ শিরোপা ধরে রাখলো অস্ট্রেলিয়া!

শেষ পর্যন্ত ওল্ড ট্রাফোর্ড টেস্টে হার এড়াতে পারলো না ইংল্যান্ড। এই জয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখে সিরিজে ২-১ এ এগিয়ে গেল অস্ট্রেলিয়া। ফলে শেষ ম্যাচে ফলাফল যা-ই হোক না কেন, ইংল্যান্ডের অ্যাশেজ জেতা হচ্ছে না এটা নিশ্চিত। আর এতে অধিনায়ক হিসেবে টানা দুই অ্যাশেজ সিরিজ জয় বঞ্চিত রইলেন জো রুট।

চতুর্থ দিন শেষে ম্যাচের লাগাম অস্ট্রেলিয়ার হাতে!

চতুর্থ দিন শেষে ম্যাচের লাগাম অস্ট্রেলিয়ার হাতে!

ওল্ড ট্রাফোর্ড টেস্টে তৃতীয় দিনের খেলা শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে ২০০ রান সংগ্রহ করেছিল ইংল্যান্ড। চতুর্থ দিনে জস বাটলার ছাড়া কেউই বিশেষ একটা সুবিধা করতে পারেনি ইংল্যান্ড দলের। অজি পেসারদের সামনে দাঁড়াতে রীতিমতো হিমশিম খেয়েছেন ইংলিশ ব্যাটসম্যানরা। তৃতীয় দিনে হ্যাজেলউডের পরে, চতুর্থ দিনে ডমিনেট করেছেন স্টার্ক-কামিন্সরা। শেষ পর্যন্ত ৩০১ রানে

বার্নস-রুটের দিনে বাঁধা হয়ে দাঁড়ালেন হ্যাজেলউড!

বার্নস-রুটের দিনে বাঁধা হয়ে দাঁড়ালেন হ্যাজেলউড!

ওল্ড ট্রাফোর্ড টেস্টের দ্বিতীয় দিনের প্রায় পুরোটাই খেলেছে অস্ট্রেলিয়া। দলীয় ৪৯৭ রানে অস্ট্রেলিয়া ইনিংস ঘোষণা করার পরে দিনের শেষ ভাগে ব্যাট করতে নামে ইংল্যাণ্ড। শেষ পর্যন্ত ১০ ওভার ব্যাট করে ১ উইকেট হারিয়ে ২৩ রান তুলে দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ করে ইংল্যান্ড। তৃতীয় দিনটা বার্নস এবং রুটের দিন মনে হলেও

রানমেশিন স্মিথের ডাবল সেঞ্চুরিতে বিপাকে ইংল্যান্ড!

রানমেশিন স্মিথের ডাবল সেঞ্চুরিতে বিপাকে ইংল্যান্ড!

বৃষ্টি বিঘ্নিত প্রথম দিন শেষে ৪৪ ওভার ব্যাট করে ৩ উইকেট হারিয়ে ১৭০ রান সংগ্রহ করেছিল অস্ট্রেলিয়া। স্মিথ এবং ল্যাবুশেনের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে প্রথম দিনে ইংল্যান্ডের বলে কিছুই ছিল না। ব্যক্তিগত ৬৭ রানে ল্যাবুশেন ফিরে গেলেও স্মিথ অপরাজিত ছিলেন ৬০ রানে। আর দ্বিতীয় দিনেও স্মিথের ব্যাটিং নৈপূণ্যে অস্ট্রেলিয়ার কাছে পাত্তাই পেলো

স্মিথ-ল্যাবুশেনের ব্যাটিংয়ে প্রথম দিনটা অস্ট্রেলিয়ার!

স্মিথ-ল্যাবুশেনের ব্যাটিংয়ে প্রথম দিনটা অস্ট্রেলিয়ার!

চোট থেকে ফিরেছেন চতুর্থ টেস্টে। আর ফিরেই সেই পুরনো স্মিথই যেন মাঠে নামলেন। ভয়ডরহীন পিওর ক্লাসে প্রথম দিনটা রইলো স্মিথময়। তার পরিবর্তে দলে সুযোগ পাওয়া ল্যাবুশেনও কম আলো ছড়ালেন না। তবে দিন শেষের আগেই সাজঘরে ফিরে যেতে হয়েছে তাকে। আউট হওয়ার আগে তুলে নিয়েছেন এই সিরিজে নিজের টানা চতুর্থ ফিফটি।

চোট কাটিয়ে ফিরলেন স্মিথ, অফফর্মে থাকা খাওয়াজা বাদ!

চোট কাটিয়ে ফিরলেন স্মিথ, অফফর্মে থাকা খাওয়াজা বাদ!

লর্ডস টেস্টের পরে ছিটকে গিয়েছিলেন স্টিভ স্মিথ। তার পরিবর্তে সুযোগ পান মার্নাস ল্যাবুশেন। তৃতীয় টেস্টে হারলেও ম্যাচে স্মিথের ঘাটতি ঠিকই পূরণ করেছিলেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। তবে চতুর্থ টেস্টের দলে আবার ফিরলেন স্টিভ স্মিথ। ওল্ড ট্রাফোর্ড টেস্টকে লক্ষ্য করে ১২ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে অস্ট্রেলিয়া। অবশ্য স্মিথের পরিবর্তে দলে সুযোগ পাওয়া