fbpx
You are here
Home > এনসিএল > লিটন-নাঈমের সেঞ্চুরি, অপেক্ষায় থাকলেন মাহমুদুল্লাহ!

লিটন-নাঈমের সেঞ্চুরি, অপেক্ষায় থাকলেন মাহমুদুল্লাহ!

লিটন-নাঈমের সেঞ্চুরি, অপেক্ষায় থাকলেন মাহমুদুল্লাহ!

এনসিএলের দ্বিতীয় রাউন্ডের খেলায় নিজেদের প্রথম ইনিংসে রাজশাহী সংগ্রহ করে ২৬১ রান। গতকাল দ্বিতীয় দিনে খুলনা ব্যাট করতে নেমে দিন শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে তুলেছিল ২২৭ রান। আজ তৃতীয় দিনে বাকি ৪ উইকেট হারিয়ে প্রথম ইনিংসে খুলনা সংগ্রহ করে ৩০৯ রান। নুরুল হাসান অপরাজিত থাকেন ৯৭ রানে। এদিকে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ১৭০ রানেই গুটিয়ে যায় রাজশাহীর দ্বিতীয় ইনিংস। সর্বোচ্চ ৫৭ রান করেন নাজমুল হোসেন শান্ত। ৪টি করে উইকেট শিকার করেন খুলনার আম-আমিন এবং রাজ্জাক। ১২৩ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দিন শেষে ১ উইকেট হারিয়ে ১৫ রান তোলে খুলনা। আগামীকাল ব্যাট করতে নেমে জেতার জন্য খুলনার প্রয়োজন হবে ১০৮ রান।

এদিকে টায়ার ওয়ানের আরেক ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল ঢাকা-রংপুর। সেখানে নিজদের প্রথম ইনিংসে সাইফ হাসানের অপরাজিত ২২০ রানের ইনিংসের কল্যাণে ৮ উইকেট হারিয়ে ৫৫৬ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করে ঢাকা। এদিকে নিজেদের প্রথম ইনিংসে গতকাল দিন শেষে ২ উইকেট হারিয়ে ৭১ রান তোলে রংপুর। ওপেনার লিটন দাস ৫১ রানে অপরাজিত থাকেন। আজ তৃতীয় দিন শেষে রংপুর সংগ্রহ করে ৫ উইকেট হারিয়ে ৩৩৪ রান। আগের দিন ফিফটি পাওয়া লিটন আজ সম্পন্ন করেন নিজের সেঞ্চুরি। ১২২ রানে আউট হন সুমন খানের বলে। এদিকে লিটন ছাড়াও সেঞ্চুরি তুলে নেন নাঈম ইসলাম। ১২৪ রানে অপরাজিত আছেন তিনি। এছাড়া ৫২ রানে অপর প্রান্তে ব্যাট করছেন তানবির হায়দার।

টায়ার টুতে প্রথম দিন শেষে সবগুলো উইকেট হারিয়ে ঢাকা মেট্রোপলিস সংগ্রহ করেছিল ২৪৬ রান। পরে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে সব গুলো উইকেট হারিয়ে সিলেট তোলে ৩১৯ রান। পরে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে গতকাল দিন শেষে বিনা উইকেট হারিয়ে ৯ রান তোলে ঢাকা মেট্রো। আজ তৃতীয় দিনের পুরো সময়টা খেলে দিন শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ২২৫ রান তোলে ঢাকা মেট্রোপলিস। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৯৫ রান করে অপরাজিত আছেন মাহমুদুল্লাহ। আগামীকাল ১৫২ রানে এগিয়ে থেকে চতুর্থ দিনের খেলা শুরু করবে ঢাকা মেট্রো।

এদিকে টায়ার টুর অন্য ম্যাচে আগে ব্যাট করতে নেমে নিজেদের প্রথম ইনিংসে সবগুলো উইকেট হারিয়ে ৩৫৬ রান তোলে চট্টগ্রাম। পরে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে দ্বিতীয় দিন শেষে ৪ উইকেট হারিয়ে ১০৪ রান তোলে বরিশাল। তবে আজ তৃতীয় দিনে ব্যাট করতে নেমে দলীয় স্কোর ২১৬ হতে না হতেই বাকি ছয় উইকেট হারিয়ে বসে বরিশাল। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬০ রান করেন নুরুজ্জামান। ৪টি উইকেট তুলে নেন চট্টগ্রামের নাঈম হাসান। পরে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে আজ দিন শেষে ১ উইকেট হারিয়ে ৫০ রান তুলেছে চট্টগ্রাম। আগামীকাল ১৯০ রানে এগিয়ে থেকে শেষ দিনের খেলা শুরু করবে তারা।

ছবিঃ ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত

উপরে