fbpx
You are here
Home > ক্রিকেট > ভারত-বাংলাদেশ টেস্ট ম্যাচের তৃতীয় দিনের লাইভ আপডেট!

ভারত-বাংলাদেশ টেস্ট ম্যাচের তৃতীয় দিনের লাইভ আপডেট!

ইনিংস এবং ১৩০ রানের বড় ব্যবধানে হারলো বাংলাদেশ!

ইনিংস এবং ১৩০ রানের বড় ব্যবধানে হারলো বাংলাদেশ!

পাঁচ দিনের টেস্ট শেষ হয়ে গেলো তিন দিনেরও কম সময়ে। আর ভারত প্রথম ম্যাচ জিতে নিল ইনিংস এবং ১৩০ রানের ব্যবধানে। দ্বিতীয় ইনিংসে ২১৩ রানেই গুটিয়ে গেল বাংলাদেশ। ভারতীয় পেসারদের সামনে দাঁড়াতেই পারলো না টাইগার ব্যাটসম্যানরা। দ্বিতীয় ইনিংসে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬৪ রান করেন মুশফিকুর রহিম। এছাড়া মেহেদি মিরাজ ৩৮ এবং লিটন দাস ৩৫ রান করেন। ভারতের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪টি উইকেট শিকার করেন মোহাম্মদ শামি। এছাড়া অশ্বিন ৩টি, উমেশ যাদব ২টি এবং ইশান্ত শর্মা ১টি উইকেট শিকার করেন।

এর আগে টেস্টের প্রথম দিনে টস জিতে শুরুতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ। আর ভারতীয় বোলিং তোপে ৫৮.৩ ওভারে মাত্র ১৫০ রানেই গুটিয়ে যায় বাংলাদেশের প্রথম ইনিংস। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪৩ রান করেন মুশফিকুর রহিম। এদিকে নিজেদের প্রথম ইনিংসে মায়াঙ্ক আগারওয়ালের অনবদ্য ২৪৩ রানের ইনিংসের কল্যাণে ৬ উইকেট হারিয়ে ৪৯৩ রান তোলে ভারত। তবে ৪ উইকেট বাকি থাকার পরেও তৃতীয় দিনে আর ব্যাট করতে নামেনি কোহলি বাহিনী। ইনিংস ঘোষণা করে বাংলাদেশকে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানায় তারা।

এদিকে ৩৪৩ রানে পিছিয়ে থেকে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে পুরো বাংলাদেশ দল মিলে এক মায়াঙ্ক আগারওয়ালের রানই তুলতে পারলো না। শুরু থেকেই ভারতীয় পেসাররা চেপে ধর বাংলাদেশকে। দলীয় ১৬ রানের মধ্যেই দুই টাইগার ওপেনার ফেরেন সাজঘরে। এরপর নিয়মিত বিরতিতে ওপেনারদের পথে হাঁটেন বাকি সবাই। মাঝে মুশফিকের ১৫০ বলে ৬৪ রানই ছিল ইনিংসে বলার মতো কিছু। এছাড়া লিটন দাসের ৩৯ বলে ৩৫ এবং মেহেদি মিরাজের ৫৫ বলে ৩৮ রানের ইনিংস হারের ব্যবধান কমানো ছাড়া কিছুই করতে পারেনি। শেষ পর্যন্ত ৬৯.২ ওভারে ২১৩ রান তুলেই গুটিয়ে যায় বাংলাদেশের ইনিংস। আগামী ২২ নভেম্বর ইডেন গার্ডেনে সিরিজের দ্বিতীয় এবং শেষ টেস্টে মুখোমুখি হবে দুই দল। টেস্টটি হবে গোলাপি বলে অর্থাৎ দিবারাত্রির টেস্ট। খেলা শুরু হবে দুপুর ১টায়।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ডঃ

বাংলাদেশ ১ম ইনিংসঃ ১৫০/১০; ৫৮.৩ ওভার (মুশফিক ৪৩, মুমিনুল ৩৭, লিটন ২১; শামি ৩/২৭, ইশান্ত ২/২০, অশ্বিন ২/৪৩, উমেশ ২/৪৭)

ভারত ১ম ইনিংসঃ ৪৯৩/৬(ডি.); ১১৪ ওভার (আগারওয়াল ২৪৩, রাহানে ৮৬, জাদেজা ৬০*; রাহী ৪/১০৮, এবাদত ১/১১৫, মিরাজ ১/১২৫)

বাংলাদেশ ২য় ইনিংসঃ ২১৩/১০; ৬৯.২ ওভার (মুশফিক ৬৪, মিরাজ ৩৮, লিটন ৩৫; শামি ৪/৩১, অশ্বিন ৩/৪২, উমেশ ২/৫১, ইশান্ত ১/৩১)

ফলাফলঃ ভারত ইনিংস এবং ১৩০ রানের ব্যবধানে জয়ী

প্লেয়ার অব দ্যা ম্যাচঃ মায়াঙ্ক আগারওয়াল (ভারত)

সিরিজঃ ২ ম্যাচ সিরিজের ১ ম্যাচ শেষে ভারত ১-০ তে এগিয়ে


টি ব্রেক থেকে ফিরেই ফিরলেন মিরাজ!

টি ব্রেক থেকে ফিরেই ফিরলেন মিরাজ!
টি ব্রেক থেকে ফিরেই ফিরলেন মিরাজ!

দলীয় ১৯১ রানে টি ব্রেকে গিয়েছিল বাংলাদেশ। ৬ উইকেট হারিয়ে ক্রিজে ছিলেন টাইগার দলের মুশফিক এবং মিরাজ। টি ব্রেকের আগেই নিজের ফিফটি তুলে নিয়েছিলেন মুশফিক। এদিকে মিরাজ ব্যাট করছিলেন ৩৮ রানে। তবে টি ব্রেক থেকে ফিরেই ভারতকে ব্রেক থ্রু এনে দিলেন উমেশ যাদব। ফিরিয়ে দিলেন ৫৫ বলে ৩৮ রান করা মিরাজকে। ক্রিজে নতুন এসেছেন তাইজুল ইসলাম। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৫৮ ওভারের খেলা শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৭ উইকেট হারিয়ে ১৯৭ রান, ১৪৬ রানে পিছিয়ে বাংলাদেশ।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ডঃ

বাংলাদেশ ১ম ইনিংসঃ ১৫০/১০; ৫৮.৩ ওভার (মুশফিক ৪৩, মুমিনুল ৩৭, লিটন ২১; শামি ৩/২৭, ইশান্ত ২/২০, অশ্বিন ২/৪৩, উমেশ ২/৪৭)

ভারত ১ম ইনিংসঃ ৪৯৩/৬(ডি.); ১১৪ ওভার (আগারওয়াল ২৪৩, রাহানে ৮৬, জাদেজা ৬০*; রাহী ৪/১০৮, এবাদত ১/১১৫, মিরাজ ১/১২৫)

বাংলাদেশ ২য় ইনিংসঃ ১৯৭/৭*; ৫৮ ওভার (সাদমান ৬, ইমরুল ৬, মুমিনুল ৭, মিঠুন ১৮, মুশফিক ৫৮*, মাহমুদুল্লাহ ১৫, লিটন ৩৫, মিরাজ ৩৮, তাইজুল ১*; ইশান্ত ১/৩১, উমেশ ২/৪৫, শামি ৩/২৫, জাদেজা ০/৪৭, অশ্বিন ১/৩৮)


টি ব্রেকের আগে নিজের ফিফটি তুলে নিলেন মুশফিক!

টি ব্রেকের আগে নিজের ফিফটি তুলে নিলেন মুশফিক!
টি ব্রেকের আগে নিজের ফিফটি তুলে নিলেন মুশফিক!

দলীয় ৭২ রান রোহিতের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান মাহমুদুল্লাহ। এরপরে ক্রিজে লিটন দাস এলে তাকে নিয়ে জুটি গড়েন মুশফিক। দুজন মিলে ৬৩ রানের জুটি গড়েন। এই জুটি যখন উইকেটে থিতু হওয়া শুরু করেছে ঠিক তখনি ভারতকে ব্রেক থ্রু এনে দেন স্পিনার অশ্বিন। কট অ্যান্ড বল করে সাজঘরে ফেরান ৩৯ বলে ৩৫ রান করা লিটন দাসকে।

লিটন ফিরে গেলে মিরাজকে সাথে নিয়ে দলের হাল ধরেন মুশফিক। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত দুজন মিলে ৫৬ রানের জুটি গড়েন। এর মাঝে মুশফিক তুলে নেন নিজের অর্ধ শতক। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৫৪ ওভারের খেলা শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৬ উইকেট হারিয়ে ১৯১ রান, ১৫২ রানে পিছিয়ে বাংলাদেশ। এই মুহুর্তে টি ব্রেকের জন্য মাঠ ছেড়েছে দুই দল।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ডঃ

বাংলাদেশ ১ম ইনিংসঃ ১৫০/১০; ৫৮.৩ ওভার (মুশফিক ৪৩, মুমিনুল ৩৭, লিটন ২১; শামি ৩/২৭, ইশান্ত ২/২০, অশ্বিন ২/৪৩, উমেশ ২/৪৭)

ভারত ১ম ইনিংসঃ ৪৯৩/৬(ডি.); ১১৪ ওভার (আগারওয়াল ২৪৩, রাহানে ৮৬, জাদেজা ৬০*; রাহী ৪/১০৮, এবাদত ১/১১৫, মিরাজ ১/১২৫)

বাংলাদেশ ২য় ইনিংসঃ ১৯১/৬*; ৫৪ ওভার (সাদমান ৬, ইমরুল ৬, মুমিনুল ৭, মিঠুন ১৮, মুশফিক ৫৩*, মাহমুদুল্লাহ ১৫, লিটন ৩৫, মিরাজ ৩৮*; ইশান্ত ১/৩১, উমেশ ১/৪২, শামি ৩/২৫, জাদেজা ০/৪৪, অশ্বিন ১/৩৮)


অশ্বিন ভাঙ্গলেন মুশফিক-লিটনের ৬৩ রানের জুটি!

অশ্বিন ভাঙ্গলেন মুশফিক-লিটনের ৬৩ রানের জুটি!
অশ্বিন ভাঙ্গলেন মুশফিক-লিটনের ৬৩ রানের জুটি!

দলীয় ৪৪ রানে ৪ উইকেট হারানোর পর মুশফিক-মাহমুদুল্লাহ মিলে শুরুর ধাক্কা সামাল দেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছিলেন। তবে সেই জুটি উইকেটে থিতু হওয়ার আগেই আঘাত হানেন শামি। ফিরিয়ে দেন ৩৫ বলে ১৫ রান করা মাহমুদুল্লাহকে। দলীয় ৭২ রান রোহিতের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান মাহমুদুল্লাহ। পরে ক্রিজে লিটন দাস এলে তাকে নিয়ে জুটি গড়েন মুশফিক। দুজন মিলে ৬৩ রানের জুটি গড়েন। এই জুটি যখন উইকেটে থিতু হওয়া শুরু করেছে ঠিক তখনি ভারতকে ব্রেক থ্রু এনে দেন স্পিনার অশ্বিন। কট অ্যান্ড বল করে সাজঘরে ফেরান ৩৯ বলে ৩৫ রান করা লিটন দাসকে। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৪২ ওভারের খেলা শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৬ উইকেট হারিয়ে ১৪৪ রান, ১৯৯ রানে পিছিয়ে বাংলাদেশ।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ডঃ

বাংলাদেশ ১ম ইনিংসঃ ১৫০/১০; ৫৮.৩ ওভার (মুশফিক ৪৩, মুমিনুল ৩৭, লিটন ২১; শামি ৩/২৭, ইশান্ত ২/২০, অশ্বিন ২/৪৩, উমেশ ২/৪৭)

ভারত ১ম ইনিংসঃ ৪৯৩/৬(ডি.); ১১৪ ওভার (আগারওয়াল ২৪৩, রাহানে ৮৬, জাদেজা ৬০*; রাহী ৪/১০৮, এবাদত ১/১১৫, মিরাজ ১/১২৫)

বাংলাদেশ ২য় ইনিংসঃ ১৪৪/৬*; ৪২ ওভার (সাদমান ৬, ইমরুল ৬, মুমিনুল ৭, মিঠুন ১৮, মুশফিক ৩৭*, মাহমুদুল্লাহ ১৫, লিটন ৩৫, মিরাজ ৭*; ইশান্ত ১/৩১, উমেশ ১/৩০, শামি ৩/১৫, জাদেজা ০/৩৬, অশ্বিন ১/২১)


শামির তৃতীয় আঘাতে ফিরলেন মাহমুদুল্লাহ!

শামির তৃতীয় আঘাতে ফিরলেন মাহমুদুল্লাহ!
শামির তৃতীয় আঘাতে ফিরলেন মাহমুদুল্লাহ!

লাঞ্চের আগেই টপ অর্ডারের চার ব্যাটসম্যান হারিয়েছিল বাংলাদেশ। পরে দলের হাল ধরার চেষ্টা চালাতে থাকেন মুশফিক এবং মাহমুদুল্লাহ। তবে এই জুটি উইকেটে থিতু হওয়ার আগেই আঘাত হানলেন শামি। ফিরিয়ে দিলেন ৩৫ বলে ১৫ রান করা মাহমুদুল্লাহকে। দলীয় ৭২ রান রোহিতের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান মাহমুদুল্লাহ। ক্রিজে নতুন এসেছেন লিটন দাস। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ২৯ ওভারের খেলা শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেট হারিয়ে ৮৫ রান, ২৫৮ রানে পিছিয়ে বাংলাদেশ।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ডঃ

বাংলাদেশ ১ম ইনিংসঃ ১৫০/১০; ৫৮.৩ ওভার (মুশফিক ৪৩, মুমিনুল ৩৭, লিটন ২১; শামি ৩/২৭, ইশান্ত ২/২০, অশ্বিন ২/৪৩, উমেশ ২/৪৭)

ভারত ১ম ইনিংসঃ ৪৯৩/৬(ডি.); ১১৪ ওভার (আগারওয়াল ২৪৩, রাহানে ৮৬, জাদেজা ৬০*; রাহী ৪/১০৮, এবাদত ১/১১৫, মিরাজ ১/১২৫)

বাংলাদেশ ২য় ইনিংসঃ ৮৫/৫*; ২৯ ওভার (সাদমান ৬, ইমরুল ৬, মুমিনুল ৭, মিঠুন ১৮, মুশফিক ১৮*, মাহমুদুল্লাহ ১৫, লিটন ৪*; ইশান্ত ১/১৫, উমেশ ১/৩০, শামি ৩/১৫, জাদেজা ০/১৬)


বিধ্বস্ত টপ অর্ডার নিয়ে লাঞ্চ ব্রেকে বাংলাদেশ!

বিধ্বস্ত টপ অর্ডার নিয়ে লাঞ্চ ব্রেকে বাংলাদেশ!
বিধ্বস্ত টপ অর্ডার নিয়ে লাঞ্চ ব্রেকে বাংলাদেশ!

গতকাল ৩৪৩ রানে এগিয়ে থেকে দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ করে ভারত। হাতে ছিল আরও ৪ উইকেট। তবে আজ তৃতীয় দিনে আর ব্যাট করতে না নেমে ইনিংস ঘোষণা করে কোহলির দল। আর নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ভারতীয় পেসারদের তোপের মুখে পড়ে বাংলাদেশের টপ অর্ডার। দলীয় ১৬ রানের মধ্যেই সাজঘরে ফেরেন টাইগার দুই ওপেনার সাদমান ইসলাম এবং ইমরুল কায়েস। ইমরুলকে উমেশ এবং সাদমানকে ফেরান ইশান্ত।

এরপর টাইগার অধিনায়ক মুমিনুল হক এবং মোহাম্মদ মিঠুন মিলে শুরুর ধাক্কা সামাল দেওয়ার চেষ্টা চালানো শুরু করেন। তবে তাদের চেষ্টা ব্যর্থ করে দেন ভারতীয় পেসার মোহাম্মদ শামি। দলীয় ৩৭ রানে ২০ বলে ৭ রান করা মুমিনুলকে তিনি ফিরিয়ে দেন এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলে। নিজের পরের ওভারে এসে মোহাম্মদ মিঠুনকেও ফেরান তিনি। মায়াঙ্ক আগারওয়ালের হাতে ক্যাচ তুলে দেওয়ার আগে ২৬ বলে ১৮ রান করেন মিঠুন। এরপর দলের হাল ধরার চেষ্টা চালাতে থাকেন মুশফিক এবং মাহমুদুল্লাহ। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ২২ ওভারের খেলা শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪ উইকেট হারিয়ে ৬০ রান, ২৮৩ রানে পিছিয়ে বাংলাদেশ। এই মুহুর্তে লাঞ্চ ব্রেকের জন্য মাঠ ছেড়েছে দুইদল।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ডঃ

বাংলাদেশ ১ম ইনিংসঃ ১৫০/১০; ৫৮.৩ ওভার (মুশফিক ৪৩, মুমিনুল ৩৭, লিটন ২১; শামি ৩/২৭, ইশান্ত ২/২০, অশ্বিন ২/৪৩, উমেশ ২/৪৭)

ভারত ১ম ইনিংসঃ ৪৯৩/৬(ডি.); ১১৪ ওভার (আগারওয়াল ২৪৩, রাহানে ৮৬, জাদেজা ৬০*; রাহী ৪/১০৮, এবাদত ১/১১৫, মিরাজ ১/১২৫)

বাংলাদেশ ২য় ইনিংসঃ ৬০/৪*; ২২ ওভার (সাদমান ৬, ইমরুল ৬, মুমিনুল ৭, মিঠুন ১৮, মুশফিক ৯*, মাহমুদুল্লাহ ৬*; ইশান্ত ১/১৫, উমেশ ১/৩০, শামি ২/৮)


ইমরুল-সাদমানের পথে হাঁটলেন মুমিনুলও!

ইমরুল-সাদমানের পথে হাঁটলেন মুমিনুলও!
ইমরুল-সাদমানের পথে হাঁটলেন মুমিনুলও!

নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ১৬ রানের মধ্যেই দুই ওপেনারকে হারিয়ে বসে বাংলাদেশ। এমন অবস্থায় টাইগার অধিনায়ক মুমিনুল হক এবং মোহাম্মদ মিঠুন মিলে শুরুর ধাক্কা সামাল দেওয়ার চেষ্টা চালানো শুরু করেন। তবে তাদের চেষ্টা ব্যর্থ করে দেন ভারতীয় পেসার মোহাম্মদ শামি। ২০ বলে ৭ রান করা মুমিনুলকে ফিরিয়ে দেন এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলে। ক্রিজে নতুন এসেছেন মুশফিকুর রহিম। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ১৪ ওভারের খেলা শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩ উইকেট হারিয়ে ৪৪ রান, ২৯৯ রানে পিছিয়ে বাংলাদেশ।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ডঃ

বাংলাদেশ ১ম ইনিংসঃ ১৫০/১০; ৫৮.৩ ওভার (মুশফিক ৪৩, মুমিনুল ৩৭, লিটন ২১; শামি ৩/২৭, ইশান্ত ২/২০, অশ্বিন ২/৪৩, উমেশ ২/৪৭)

ভারত ১ম ইনিংসঃ ৪৯৩/৬(ডি.); ১১৪ ওভার (আগারওয়াল ২৪৩, রাহানে ৮৬, জাদেজা ৬০*; রাহী ৪/১০৮, এবাদত ১/১১৫, মিরাজ ১/১২৫)

বাংলাদেশ ২য় ইনিংসঃ ৪৪/৩*; ১৪ ওভার (সাদমান ৬, ইমরুল ৬, মুমিনুল ৭, মিঠুন ১৮*, মুশফিক ১*; ইশান্ত ১/১১, উমেশ ১/২৬, শামি ১/১)


উমেশের পর এবার ইশান্তের আঘাত!

উমেশের পর এবার ইশান্তের আঘাত!
উমেশের পর এবার ইশান্তের আঘাত!

নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ১০ রানে উমেশের বলে বোল্ড হয়ে ফিরে যান টাইগার ওপেনার ইমরুল কায়েস। ১৩ বলে ৬ রান করেন তিনি। পরের ওভারেই আরেক ওপেনার সাদমান ইসলামকে ফেরান ইশান্ত শর্মা। ২৪ বলে ৬ রানের ইনিংস খেলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনিও। প্রথম ইনিংসেও সাদমান এবং ইমরুল দুজনের প্রত্যেকেই ৬ রানের ইনিংস খেলেছিলেন। ক্রিজে নতুন এসেছেন মোহাম্মদ মিঠুন। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ১০ ওভারের খেলা শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২ উইকেট হারিয়ে ২০ রান, ৩২৩ রানে পিছিয়ে বাংলাদেশ।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ডঃ

বাংলাদেশ ১ম ইনিংসঃ ১৫০/১০; ৫৮.৩ ওভার (মুশফিক ৪৩, মুমিনুল ৩৭, লিটন ২১; শামি ৩/২৭, ইশান্ত ২/২০, অশ্বিন ২/৪৩, উমেশ ২/৪৭)

ভারত ১ম ইনিংসঃ ৪৯৩/৬(ডি.); ১১৪ ওভার (আগারওয়াল ২৪৩, রাহানে ৮৬, জাদেজা ৬০*; রাহী ৪/১০৮, এবাদত ১/১১৫, মিরাজ ১/১২৫)

বাংলাদেশ ২য় ইনিংসঃ ২০/২*; ১০ ওভার (সাদমান ৬, ইমরুল ৬, মুমিনুল ৭*, মিঠুন ১*; ইশান্ত ১/৬, উমেশ ১/১৪)


শুরুর আগেই শেষ হয়ে গেলেন ইমরুল!

শুরুর আগেই শেষ হয়ে গেলেন ইমরুল!
শুরুর আগেই শেষ হয়ে গেলেন ইমরুল!

৩৪৩ রানে এগিয়ে থেকে আজ দিনের শুরুতেই ইনিংস ঘোষণা করেছিল ভারত। আর নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে আবারও ব্যর্থ ওপেনার ইমরুল কায়েস। দলীয় ১০ রানে উমেশ যাদবের বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফিরে গেলেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। ক্রিজে এসেছেন টাইয়াগ্র অধিনায়ক মুমিনুল হক। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৬ ওভারের খেলা শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১ উইকেট হারিয়ে ১৪ রান, ৩২৯ রানে পিছিয়ে বাংলাদেশ।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ডঃ

বাংলাদেশ ১ম ইনিংসঃ ১৫০/১০; ৫৮.৩ ওভার (মুশফিক ৪৩, মুমিনুল ৩৭, লিটন ২১; শামি ৩/২৭, ইশান্ত ২/২০, অশ্বিন ২/৪৩, উমেশ ২/৪৭)

ভারত ১ম ইনিংসঃ ৪৯৩/৬(ডি.); ১১৪ ওভার (আগারওয়াল ২৪৩, রাহানে ৮৬, জাদেজা ৬০*; রাহী ৪/১০৮, এবাদত ১/১১৫, মিরাজ ১/১২৫)

বাংলাদেশ ২য় ইনিংসঃ ১৪/১*; ৬ ওভার (সাদমান ৪*, ইমরুল ৬, মুমিনুল ৪*; ইশান্ত ০/৪, উমেশ ১/১০)


তৃতীয় দিনের শুরুতেই ভারতের ইনিংস ঘোষণা!

তৃতীয় দিনের শুরুতেই ভারতের ইনিংস ঘোষণা!
তৃতীয় দিনের শুরুতেই ভারতের ইনিংস ঘোষণা!

গতকাল মায়াঙ্ক আগারওয়ালের ডাবল সেঞ্চুরিতে দিন শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ৪৯৩ রান তুলেছিল ভারত। ৬০ রানে অপরাজিত ছিলেন রবিন্দ্র জাদেজা এবং ২৫ রানে ব্যাট করছিলেন উমেশ যাদব। আজ ৩৪৩ রানে এগিয়ে থেকে তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করার কথা ছিল ভারতের। তবে আজ আর ব্যাট করতে মাঠে নামলো না ভারত। ইনিংস ঘোষণা করে বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানালো নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করার জন্য। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৩ ওভারের খেলা শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ বিনা উইকেট হারিয়ে ৮ রান।

সংক্ষিপ্ত স্কোরকার্ডঃ

বাংলাদেশ ১ম ইনিংসঃ ১৫০/১০; ৫৮.৩ ওভার (মুশফিক ৪৩, মুমিনুল ৩৭, লিটন ২১; শামি ৩/২৭, ইশান্ত ২/২০, অশ্বিন ২/৪৩, উমেশ ২/৪৭)

ভারত ১ম ইনিংসঃ ৪৯৩/৬(ডি.); ১১৪ ওভার (আগারওয়াল ২৪৩, রাহানে ৮৬, জাদেজা ৬০*; রাহী ৪/১০৮, এবাদত ১/১১৫, মিরাজ ১/১২৫)

বাংলাদেশ ২য় ইনিংসঃ ৮/০*; ৩ ওভার (সাদমান ৪*, ইমরুল ৪*; ইশান্ত ০/৩, উমেশ ০/৫)

ছবিঃ ইন্টারনেট থেকে সংগৃহীত

উপরে